অল্পকথা ডট কম

স্বর্নালী দিনের স্পর্শ

সাথে থাকুন

Download

গান শুনতে এখানে ক্লিক »করুন !

Member Login

Lost your password?

Not a member yet? Sign Up!

সেলিনা হোসেন

লেখকঃ সেলিনা হোসেন

লেখক সম্পর্কেঃ সেলিনা হোসেন (জুন ১৪, ১৯৪৭) বাংলাদেশের একজন প্রখ্যাত নারী ঔপন্যাসিক। তাঁর উপন্যাসে প্রতিফলিত হয়েছে সমকালের সামাজিক ও রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব্ব সংকটের সামগ্রিকতা। বাঙালির অহংকার ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধের প্রসঙ্গ তাঁর লেখায় নতুনমাত্রা যোগ করেছে। তাঁর গল্প উপন্যাস ইংরেজি, রুশ, মেলে এবং কানাড়ী ভাষায় অনূদিত হয়েছে। ২০১৪ সালে বাংলাদেশ শিশু একাডেমির চেয়ারম্যান হিসেবে দুই বছরের জন্য নিয়োগ পান তিনি। জন্ম ও প্রাথমিক জীবনঃ সেলিনা হোসেনের জন্ম ১৪ ই জুন, ১৯৪৭, রাজশাহী শহরে। তাঁর পৈতৃক নিবাস লক্ষ্মীপুর জেলার হাজিরপাড়া গ্রাম। বাবা এ কে মোশাররফ হোসেন এবং মা মরিয়মন্নেসা বকুল। তিনি পিতা মাতার চতুর্থ সন্তান। বাবা এ কে মুশাররফ হোসেন এর আদিবাড়ি নোয়াখালি হলেও চাকরিসূত্রে বগুড়া ও পরে রাজশাহী থেকেছেন দীর্ঘকাল; কাজেই সেলিনাকে একেবারে মেয়েবেলায় নোয়াখালিতে বেশিদিন থাকতে হয়নি। সেলিনা হোসেনের মায়ের নাম মরিয়ামুন্ননেছা বকুল। মুশাররফ-মরিয়ামুন্ননেছা দম্পতির সব মিলিয়ে সাত ছেলেমেয়ে। সেলিনা ভাইবোনদের মধ্যে চতুর্থ। শিক্ষা জীবনঃ মহান ভাষা আন্দোলনের দুবছর পর পর (অর্থাৎ,১৯৫৪ সালে) বগুরার লতিফপুর প্রাইমারি স্কুলে ভর্তি হল বালিকা সেলিনা। ক্লাস থ্রিতে। ১৯৫৯ সালে রাজশাহীর নাথ গালর্স স্কুলে ক্লাস এইটে ভর্তি হন তিনি। নাথ গালর্স স্কুলের বেশির ভাগ শিক্ষক-শিক্ষকাই ছিলেন উদার আর মহৎ। কেননা, ছাত্রীদের তারা কেবল সিলেবাসে আটকে রাখেননি। নাথ গালর্স স্কুল থেকেই ম্যাট্রিক (তখন এস এস সি বলা হত না) পাশ করেন ১৯৬২ সালে। পরবর্তীতে ১৯৬৪ সালে রাজশাহী উইমেন্স কলেজে ভর্তি হন তিনি। কলেজ জীবন শেষ করে বাংলা ভাষা ও সাহিত্য নিয়ে ভর্তি হল রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে। এবার জীবনে যুক্ত হল নিবিড় সাংস্কৃতিক ও গভীর রাজনৈতিক অধ্যায়। ১৯৬৭ সালে বিতর্ক প্রতিযোগীতায় অংশ নিতে পাঞ্জাব যাওয়ার কথা থাকলেও অস্থির রাজনৈতিক অবস্থার কারণে যাওয়া হয়নি। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই বি এ অনার্স পাশ করলেন ১৯৬৭ সালে। এম এ পাশ করেন ১৯৬৮ সালে। কর্মজীবনঃ সেলিনা হোসেনের কর্মজীবন শুরু হয় ১৯৭০ সালে বাংলা একাডেমীর গবেষণা সহকারী হিসেবে। তিনি ১৯৬৮ সালে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বেরিয়ে চাকরী পাওয়ার আগ পর্যন্ত বিভিন্ন পত্রিকাতে উপসম্পাদকীয়তে নিয়মিত লিখতেন। ১৯৭০ সালে দুটো চাকরীর ইন্টারভিউয়ের জন্য চিঠি পান। একটি বাংলা একাডেমিতে অন্যটি পাবলিক সার্ভির্স কমিশন থেকে সরকারী কলেজের জন্য। বাংলা একাডেমীর চাকরীর ইন্টারভিউ বোর্ডে ছিলেন বাংলা একাডেমীর তৎকালীন পরিচালক কবীর চৌধুরী, ড. মুহম্মদ এনামুল হক, ড. নীলিমা ইব্রাহিম, আবদুল্লাহ আলমুতী শরফুদ্দীন প্রমুখ। এর পাশাপাশি পাবলিক সার্ভিস কমিশনে সরকারি কলেজের চাকরির জন্য ইন্টারভিউ দিতে গিয়ে বোর্ডে শহীদ অধ্যাপক মুনীর চৌধুরীকে পান। কর্মরত অবস্থায় তিনি বাংলা একাডেমীর 'অভিধান প্রকল্প', 'বিজ্ঞান বিশ্বকোষ প্রকল্প', 'বিখ্যাত লেখকদের রচনাবলী প্রকাশ', 'লেখক অভিধান', 'চরিতাভিধান' এবং 'একশত এক সিরিজের' গ্রন্থগুলো প্রকাশনার দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও ২০ বছরেরও বেশি সময় 'ধান শালিকের দেশ' পত্রিকা সম্পাদনা করেন। তিনি ১৯৯৭ সালে বাংলা একাডেমীর প্রথম মহিলা পরিচালক হন। ২০০৪ সালের ১৪ জুন চাকুরি থেকে অবসর নেন। প্রথম গল্পগ্রন্থ উৎস থেকে নিরন্তর প্রকাশিত হয় ১৯৬৯ সালে। ভ্রমণ তাঁর নেশা। তাঁর মোট উপন্যাসের সংখ্যা ২১টি, গল্প গ্রন্থ ৭টি এবং প্রবন্ধের গ্রন্থ ৪টি।

লেখকের ইউআরএলঃ
অবস্থান: বাংলাদেশ
প্রোফাইলঃ ৭৩ views হয়েছে ।

সেলিনা হোসেন, মন্তব্য সংখ্যাঃ ০

সেলিনা হোসেন, পোষ্ট সংখ্যাঃ ১৭

যুক্ত হয়েছেনঃ ডিসেম্বর ৩০, ২০১৪, মঙ্গলবার,

সেলিনা হোসেন 'র পছন্দের পোষ্টঃ
  • "এখনো কোন পছন্দের পোষ্ট যুক্ত করেন নাই ।"

  • মুখোশ

    সংযুক্তির তারিখঃ ১০ জানুয়ারী ২০১৭ লিখেছেনঃ সেলিনা হোসেন

    রাহুল আর লোপিতা পার্কে বসে কথা বলছিল। লাঠির মাথায় একগাদা মুখোশ বেঁধে হেঁটে আসা মামুনকে ওরা দূর থেকে দেখতে পায়। লোপিতা চেঁচিয়ে বলে, দেখো রাহুল, লোকটা কত সুন্দর সুন্দর মুখোশ নিয়ে যাচ্ছে। আমি দুটো মুখোশ নেব? কোনটা নেবে? রানি? উঁহু, রানি সাজার শখ আমার নেই। আমি ভালুকের মুখোশ নেব। ভালুক? লোপিতা হেসে গড়িয়ে পড়ে, আমি […] বিস্তারিত

    ট্যাগসমুহঃ

    মুখোশ তে মন্তব্য বন্ধ

    একজন বিশাল পরিমাপের মানুষ

    সংযুক্তির তারিখঃ ০৪ অক্টোবর ২০১৬ লিখেছেনঃ সেলিনা হোসেন

    ষাটের দশকে আমি বিশ্ববিদ্যালয়ে। তখন অনেকের লেখা পড়তাম। তখন থেকেই হক ভাইকে লেখার মধ্য দিয়ে চিনি। তাঁর গল্পগ্রন্থ ‘তাস’-এর কথা শুনেছিলাম সেই সময়ে। একুশের সংকলনে প্রকাশিত তাঁর কবিতা পড়েছিলাম। তারপর পড়েছি ‘রক্তগোলাপ’, ‘আনন্দের মৃত্যু’ বইগুলো। হক ভাইকে দেখি স্বাধীন বাংলাদেশে। এর আগে তাঁর সঙ্গে আমার পরিচয়ই ছিল না। স্বাধীন বাংলাদেশে দেখা হয়, বাংলা একাডেমিতে তাঁর […] বিস্তারিত

    ট্যাগসমুহঃ

    একজন বিশাল পরিমাপের মানুষ তে মন্তব্য বন্ধ

    কার্তিক বিহুতে প্রেম

    সংযুক্তির তারিখঃ ১২ জুলাই ২০১৬ লিখেছেনঃ সেলিনা হোসেন

    মাস দুই হলো হরিণঘাটার বনের ধারে ছনের ছাউনির কুটিরে ডেরা গেড়েছে মাহবুব বিন আলসাফা তৈয়বুদ্দিন। আমেরিকা থেকে পড়ালেখা শেষ করে দেশে এসে বনের ধারের এই চাকরিটি জুটিয়েছে। বেসরকারি সংস্থার অফিস। বেশ দিন কাটছে। রাতারাতি ঢাকা শহরের চেনাজানা পরিবেশ থেকে অচেনা পরিবেশে ধাম করে চলে আসা জীবন নিয়ে বাজি ধরা মনে হয় না। বরং এই স্নিগ্ধতার […] বিস্তারিত

    ট্যাগসমুহঃ

    কার্তিক বিহুতে প্রেম তে মন্তব্য বন্ধ

    বৈশাখের কাছে প্রার্থনা

    সংযুক্তির তারিখঃ ১৪ এপ্রিল ২০১৬ লিখেছেনঃ সেলিনা হোসেন

    বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর লিখেছেন, ‘মুছে যাক গ্লানি, ঘুচে যাক জরা। অগ্নিস্নানে শুচি হোক ধরা।’ বৈশাখ, তোমার চেয়ে আর কে বেশি জানে যে এ দুটো পঙ্ক্তি একজন কবির শুধু ঋতুবন্দনা নয়, কবি জীবনের কল্যাণে প্রকৃতির কাছে প্রার্থনা করেছেন। বছর ধরে জমে ওঠা গ্লানি ও জীর্ণতাকে দূর করে ধরণিকে শুচি করার কথা বলেছেন। সারা বছরের আবর্জনা দূর […] বিস্তারিত

    ট্যাগসমুহঃ

    বৈশাখের কাছে প্রার্থনা তে মন্তব্য বন্ধ

    সখিনার চন্দ্রকলা

    সংযুক্তির তারিখঃ ০১ এপ্রিল ২০১৬ লিখেছেনঃ সেলিনা হোসেন

    রাজাকার সুলেমানের দিকে দা উঁচিয়ে নিকলির সখিনা বলে, এইডা কি চিনস? কল্লা ফালায়ে দিমু। সুলেমান কয়েক পা পিছিয়ে গিয়ে বিড়বিড় করে বলে, মাগি। সখিনা শব্দটা ঠিকই শুনতে পায়। বয়স হলেও ওর শ্রবণশক্তি তীক্ষ। ও দা উঁচিয়ে সুলেমানকে তাড়া করলে সুলেমান ছুটে পালায়। সখিনাও পিছু নেয়। একপর্যায়ে ও সুলেমানকে লক্ষ্য করে দা-টা ছুড়ে মারলে সেটা অল্পের […] বিস্তারিত

    ট্যাগসমুহঃ

    সখিনার চন্দ্রকলা তে মন্তব্য বন্ধ

    মুঠি ভরে ধরে রাখা ছায়ার শব্দ

    সংযুক্তির তারিখঃ ২৬ মার্চ ২০১৬ লিখেছেনঃ সেলিনা হোসেন

    জেনিফার চলে যাওয়ার পরে শামসুল আলম ডায়েরি লিখতে শুরু করে। যেদিন কিছু লিখতে ইচ্ছে করে না, সেদিন তারিখের ঘরে লাল দাগ দেয়। মন ভালো থাকলে ছোট্ট ফুল-পাখি আঁকে, নইলে টিকচিহ্ন দেয়। একটি লাল কালির বলপেন রাখা আছে ডায়েরির সঙ্গে। ডায়েরি লেখার আট দিন পার হয়েছে আজ। সকাল থেকে মাথা কেমন ঝিমঝিম করছে। এ ঘরে ও […] বিস্তারিত

    ট্যাগসমুহঃ

    মুঠি ভরে ধরে রাখা ছায়ার শব্দ তে মন্তব্য বন্ধ

    সবিনের ঘরটা অন্ধকার

    সংযুক্তির তারিখঃ ২৫ মার্চ ২০১৬ লিখেছেনঃ সেলিনা হোসেন

    বাইরে ঘুটঘুটে অন্ধকার। রাতটা বড় বেশি স্তব্ধ। গাছের পাতাগুলো যেন রুদ্ধ নিঃশ্বাসে অপেক্ষা করছে—কি যেন একটা ঘটতে যাচ্ছে তারই অস্পষ্ট আভাস বুঝি বাতাসে মিশে আছে। তাই কোথাও শব্দ হচ্ছে না। সব কিছু বুঝি উত্কর্ণ হয়ে আছে। হাতের সিগারেটটা পুড়ে পুড়ে শেষ হয়ে আসছে। আঙুলে একটু ছেঁকা লাগল। ছুড়ে ফেলল ঘাসের ওপর। অন্ধকার রাতে সিগারেটের টুকরোটা […] বিস্তারিত

    ট্যাগসমুহঃ

    সবিনের ঘরটা অন্ধকার তে মন্তব্য বন্ধ

    দু’রকম যুদ্ধ

    সংযুক্তির তারিখঃ ০৯ জানুয়ারী ২০১৬ লিখেছেনঃ সেলিনা হোসেন

    দৌড়াচ্ছে নূরজান। প্রাণপণে। দৌড়াচ্ছে শরীরের যাবতীয় শক্তি দিয়ে। শক্তি ঠেলে দিয়েছে পায়ে, ভাবনা এমন যে, ফুসফুসেরও শক্তি দরকার নেই কিংবা অন্য অঙ্গের। পা ওকে শক্তিমান করেছে। ও ভাবছে, ও দৌড়াচ্ছে না; উড়ছে। ওড়া ছাড়া ক্ষিপ্র গতিতে যাওয়া যাবে না। পা দিয়ে ওড়া যায়_ এই মুহূর্তে এই সত্য ওর চেয়ে বেশি কে জানে! কিছুক্ষণ আগেও তিনজন […] বিস্তারিত

    ট্যাগসমুহঃ

    দু’রকম যুদ্ধ তে মন্তব্য বন্ধ

    নিঃসঙ্গ দুপুর(শেষাংশ)

    সংযুক্তির তারিখঃ ১৮ অক্টোবর ২০১৫ লিখেছেনঃ সেলিনা হোসেন

    মাকে গাছের নিচে এগোতে দেখলে বাবা সোজা হয়ে দাঁড়ায়। বাবার হাত থেকে পানির বোতল পড়ে যায়। আমাদের বাবা ভ্যাবলাকান্ত হয়ে যায়। বাবার জন্য আমার খুব মায়া হয়। একবার ভাবি যে মাকে বলি, আম্মা, বাড়ি চলেন। কিন্তু বলতে পারি না। মা ততক্ষণে আমার হাত ছেড়ে দিয়ে বাজানের সামনে গিয়ে দাঁড়িয়েছে। গিয়েই বলে, শোন মেয়ে হয়েছে বলেই […] বিস্তারিত

    ট্যাগসমুহঃ

    নিঃসঙ্গ দুপুর(শেষাংশ) তে মন্তব্য বন্ধ

    দ্বন্দ্ব

    সংযুক্তির তারিখঃ ১৮ অক্টোবর ২০১৫ লিখেছেনঃ সেলিনা হোসেন

    একটানা কাজ করার পর চেয়ার থেকে উঠতেই কোমরে টান লাগে। ঠোঁট কুঁচকে পিঠ টান করে শ্বাস ছাড়ে সুজয়। বয়স কি বাড়লো? নাকি পরিশ্রম বেশি হচ্ছে? নিজেকেই প্রশ্ন করে। তারপর মৃদু হাসি দিয়ে দুটো জিজ্ঞাসাই তুড়ি মেরে উড়িয়ে দেয়। দুর কিছুই হয়নি, মাঝে মাঝে এমন রগড় করা শরীরের অভ্যেস। এ হলো মনের সঙ্গে শরীরের ভালোবাসার খেলা। […] বিস্তারিত

    ট্যাগসমুহঃ

    দ্বন্দ্ব তে মন্তব্য বন্ধ

    ই-মেইলের মাধ্যমে নতুন পোষ্ট-এর জন্য

    আপনার ই-মেইল লিখুন

    ,

    জুন ২৮, ২০১৭,বুধবার

    Custom Search
    আপনার বিজ্ঞাপন !

    বাংলা সংবাদপত্র