বিজয়ের বিবরণ

একদা আমি ভাবতাম, মানুষ হলো গতি, বেগ ও
আবেগের পুত্র। একদিন এই সূত্র নিয়ে চিন্তা করতে করতে দেখি
আমার চিন্তাসূত্র ছিঁড়ে বেরিয়ে যাচ্ছে একটি রশ্মির ছটা।
মানুষ আলোরই স্ফুলিঙ্গ বলে। আমি বিশ্বাস করে
ভূপৃষ্ঠে পা রেখে হাঁটতে চেয়েছিলাম। হাঁটতে হাঁটতে দেখি
আমি একদিন বিশ্বের সমস্ত নগরের ফুটপাথ বেয়ে
চলে এসেছি আমার নিজেরই বাড়িতে।
এই তো আমার ঘর। একটি ত্রিতল ইমারতের ওপরে
এখানে আমি থাকি আর ভাবি আমি তো আর কোনো
বিষয়ের বিবরণ দিতে পারব না। তবে, আমি যা দেখেছি
যা শুনেছি, যা অনুমান ও আস্বাদন করেছি সবটাই আমার
রক্তের তরঙ্গে মিশে মস্তিষ্কে প্রবাহিত হয়েছে।
আমার অভিজ্ঞতা হলো, আমি আমার অস্তিত্বের বাইরে
পা ফেলতে না পারলেও আমার চিন্তা আমার স্বপ্ন
এবং আমার সাহস আমার আয়তনের চেয়ে অনেক বিস্তৃত।
আমি একটি শস্যক্ষেত্র খুঁজে পেয়েছি। আমি সেখানে
যেভাবে খুশি আমার চিন্তার বীজ বপন করি।
সেখানে দেখতে পাই কিছুই ছিল না কিন্তু সহসাই
কোথা থেকে যেনো মাটি ফুঁড়ে বেরিয়ে এসেছে বৃক্ষের সারি।
গাছ.. গাছ.. গাছ…। যেন হাতের মতো শাখা তুলে
আকাশে বাড়িয়ে দিয়েছে সাহস। নিজের অস্তিত্বের ঘোষণা
দিতে সে মেঘকে তার খাদ্য করে তুলেছে। হাওয়াকে করেছে
নিজের শ্বাস-প্রশ্বাস। এবং বৃষ্টিকে করেছে তার সৃষ্টির ইচ্ছা।
সে বপন করে শস্যক্ষেত্র ইচ্ছেমতো। সে রচনা করে ফসল
সব মিলিয়ে সে ভাবে আমি সমস্ত সৃজন রহস্যের
কেন্দ্রবিন্দুতে দাঁড়িয়ে আছি। আমি হাত বাড়ালেই ধরতে পারি
প্রেম। আমি ইশারা করলেই নেমে আসে ভালোবাসা।
আমি ডাক দেই আমার নিজের নাম ধরে।
আমার নাম হয়ে যায় আমারই আশা-ভরসা
আমি আমার সাফল্যে সাহসে সরলতায় মুগ্ধ
আমি বলি জয় হোক। অমনি চারদিক থেকে জয়ধ্বনি বেজে ওঠে
আমি মাঝখানে দাঁড়িয়ে থাকি। যেন সাজানো গোছানো
একটি স্মৃতিস্তম্ভ। মানুষ আমাকে দেখতে জড়ো হয়েছে
আমি তাদের চেহারার দিকে তাকিয়ে দেখতে পাই কেবল আশা
কেবল ভরসা এবং জয়ধ্বনি।
তবু আমি তো আমিই। দেখতে অতো ভালো না হলেও
মুখে হাসি বুকে বল এবং দুই চোখে জল নিয়ে হাঁটছি
আমি আমার নাম দিয়েছি বিজয়। আমাকে সবাই
বিজয় বলেই সম্বোধন করে। এতে আমি সহসা
হেসে উঠি। কখনো কাঁদতে কাঁদতে হাসির ছটা
চোখ দিয়ে বেরিয়ে এসে আমার গণ্ডদেশ ভাসিয়ে নেমে যায়।
হায়! একফোঁটা অশ্রুজল কালের কপোল তলে
মুক্তোর মতো জমা হয়ে গেলো। তোমরা কি দেখতে পাও না?

সম্পর্কিত পোষ্ট =>  তোমার জন্মভূমি

১৪ ডিসেম্বর ২০১৪

 

মন্তব্য

মন্তব্য সমুহ

আল মাহমুদ- এর আরো পোষ্ট দেখুন →
রেটিং করুনঃ
1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars (No Ratings Yet)
Loading...